বিএনপির বিক্ষোভে সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

রাজনীতি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের বিরোধীতায় হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনে হামলা চালিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বিভিন্ন জেলায় মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিএনপি। দলটির ডাকা এ কর্মসূচিতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া বিভিন্ন জেলায় হয়েছে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া।

নওগাঁ
সকালে শহরের কেডির মোড়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে মিছিল নিয়ে জড়ো হোন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। সেখানে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল। পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে পুলিশ ও নেতাকর্মীদের মধ্যে শুরু হয় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। পুলিশ ফাঁকা গুলি ও রাবার বুলেট ছুড়ে। এক পর্যায়ে লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। অপরদিকে বিএনপি নেতাকর্মীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে। এ সময় কয়েকটি দোকান ও একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

বিএনপির নেতাকর্মীরা জানায়, তারা বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ হঠাত তাদের লাঠিপেটা শুরু করে। এই সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষে ৫০ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তারা। আহতরা শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিএনপি মিছিল নিয়ে শহরের ব্যস্ততম সড়ক দিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় তাদের বাধা দিলে তারা পুলিশকে উদ্দেশ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে শুরু করে। পরে পুলিশও টিয়ারশেল আর রাবার বুলেট ছোড়ে। তাদের ছোড়া ইটপাটকেলের আঘাতে ছয় সাতজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

নাটোর 
সকালে শহরের আলাইপুরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপি নেতাকর্মীরা জড়ো হতে থাকলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে এগিয়ে যায়। এরপর পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের তর্কাতর্কির পর সেখান থেকে সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফয়সাল আলম আবুল ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি কামরুল ইসলামকে পুলিশ আটক করার চেষ্টা করে। নেতাকর্মীরা তাদের পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে গেলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়।

জেলার বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস দুলু বলেন, পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে বিরূপ আচরণ করছে। তারা আমাদের বিক্ষোভ সমাবেশ করতে দেয়নি উল্টো নেতাকর্মীকে আটকের চেষ্টা করছে।

টাঙ্গাইল
জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ ইকবালের নেতৃত্বে সকালে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের ধস্তাধস্তি হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ এসে ধাওয়া করলে মিছিলটি ছাত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

ফরহাদ অভিযোগ করে বলেন, আমাদের এটা কেন্দ্রীয় কর্মসূচি ছিল। কিন্তু আমাদের কর্মসূচি পালনে পুলিশ বাধা দিয়ে কর্মসূচি ছাত্রভঙ্গ করে দেয়।

এছা্ড়া লালমনিরহাট ও কিশোরগঞ্জেও জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল পুলিশি বাধায় পণ্ড হয়ে যায়।

Please follow and like us:শেয়ার করুন
error10
Tweet 150
fb-share-icon20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *